• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
সরকারের সাফল্য অর্জন নিয়ে জুরাছড়িতে জেলা তথ্য অফিসের প্রেস ব্রিফিং                    আমরা সবাই আইন মেনে চললে দুর্নীতি কমে আসবে -দূদক চেয়ারম্যান                    রোহিঙ্গা শরনার্থীদের মানবিক সহায়তায় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ৫০ হাজার টাকা প্রদান পার্বত্য ভিক্ষু সংঘের                    জুরাছড়িতে ভুয়া স্থায়ী বাসিন্দার অভিযোগ এনে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ বাতিলের দাবী আওয়ামীলীগের                    যুব সমাজকে মাদদের হাত থেকে রক্ষায় খেলাধুলার কোন বিকল্প নেই-ঊষাতন তালুকদার এমপি                    বাল্য বিবাহের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে                    বজ্রপাত থেকে রক্ষায় রাঙামাটিতে একযোগে দুই লক্ষ তাল বীজ রোপণ                    ১৪ বছর পর কাপ্তাই প্রেস ক্লাবের বৈঠক!                    রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কেউই বিভ্রান্তি ছড়াতে না পারে সে ব্যাপারে সকলকে সজাগ থাকতে হবে-বৃষকেতু চাকমা                    জুরাছড়িতে দশ হাজার তাল বীজ রোপণ                    কর্ণফুলী ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠন                    কাপ্তাইয়ে পাহাড় ও ভুমি ধসে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে আর্থিক সহায়তা প্রদান                    কাপ্তাইয়ে ৪২ টি স্পটে একযোগে ১০ হাজার তাল বীজ রোপণ                    কর্ণফুলী ডিগ্রী কলেজের ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন                    রাঙামাটিতে মালবাহী ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দোকাঘরে ঢুকে ২ জন নিহতঃ আহত ৭                    বিশ্ব পর্যটন দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে রাঙামাটিতে প্রস্তুতিমূলক সভা                    হিজরি নববর্ষকে রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনের দাবি                    বজ্রপাত থেকে রক্ষা পেতে কাপ্তাইয়ে রোপন করা হবে১০ হাজার তাল বীজ                    কাপ্তাইয়ে সাংস্কৃতিক একাডেমীর সংগীত পরীক্ষায় উর্ত্তীন ছাত্র-ছাত্রীদের সনদপত্র বিতরন                    লংগদুতে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সাড়ে তিন মাসেও ক্ষতিগ্রস্তরা বসত ভিটায় ফিরতে পারেনি                    খাগড়াছড়িতে দরিদ্র শিশু ও নারীদের মাঝে রামকৃষ্ণ মিশনের বস্ত্র বিতরণ                    
 

পাহাড় ধসের ঘটনায় তদন্তে গঠিত জাতীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ রাঙামাটিতে

স্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 04 Jul 2017   Tuesday

পাহাড় ধসের কারণ নির্ধারণ ও থেকে উত্তোরণের উপায় খুজতে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয়ের গঠিত ২৭ সদস্যর একটি শক্তিশালী কমিটি মঙ্গলবার রাঙামাটিতে সফরে এসেছেন।


মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কমিটির সদস্যরা জেলা প্রশাসন কার্যালয় সন্মেলন কক্ষে জেলার উর্দ্ধতন কর্মকর্তা ও সুধীজনের সাথে বিশেষ সভায় মিলিত হন। ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয়ের গঠিত ২৭ সদস্যর কমিটির প্রধান হলেন মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব অতিরিক্ত সচিব সত্যব্রত সাহা। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব অর্ধেন্দু শেখর, ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের জিওলোজিকেল বিভাগের অধ্যাপক এম শহীদুল ইসলাম, এলজিইডি মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব মোঃ আব্দুর রউফ, ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব হারুনুর রশীদ, ভূমি মন্ত্রনালয়ের উপসচিব সোয়েবুর রহমান, বন ও পরিবেশ মন্ত্রনালয়ের উপসচিব জসীম উদ্দীন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব নন্দ দুলাল, ত্রান ও দুর্যোগ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব ড. অর্নব শংকর প্রমুখ।

 

উল্লেখ্য কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে কো-অপ্ট করার বিধান অনুসারে ৫ জেলার জেলা প্রশাসক, রাঙামাটির পুলিশ সুপার, রাঙামাটি পৌর মেয়র,পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের প্রতিনিধি,রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের প্রতিনিধি এবং রাঙামাটি জেলার রাঙামাটি সদর ও কাউখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানদের অন্তর্ভূক্ত করা হয়।

 

সভায় জেলার সুধীজন ও কর্মকর্তারা তাদের মতামতে বলেন, বন উজাড়, পাহাড় কাটা এবং এখানকার আবাসিক বানিজ্যিক ও সরকারী ভবন নির্মানের ক্ষেত্রে সমন্বিত কার্যক্রম গ্রহনে ব্যর্থতায় এত বড় ধরনের দুর্যোগ সংগঠিত হয়েছে। তারা আরো বলেন, রাঙামাটি শহরকে কেন্দ্র করে শুধুমাত্র দুর্যোগের চিত্র বর্ননা করলে হবে না, ইউনিয়নগুলোতে কতটুকু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা দেখতে হবে। তারা ক্ষতিগ্রস্থদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণসহ পূর্নবাসের করা না গেলে সেখানে খাদ্যভাব দেখা দিতে পারে।


পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান তরুন কান্তি ঘোষ পার্বত্য তিন জেলায় বিভিন্ন উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানে বিগত ১৩ বছর যাবত বিভিন্ন পথে থেকে কাজ করতে গিয়ে তার অভিজ্ঞা উল্লেখ করে বলেন, বাস্তব অবস্থা হচ্ছে পার্বত্যাঞ্চলের মাটির ধরন দেশের অন্যান্য অঞ্চলের চাইতে ভিন্নতর। তাই এখানে উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহনের পূর্বেই মাটির গুনাগুনের বিষয়টি ধারনায় রাখা উচিত।


পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান বলেন,গেল ১৩ জুন তারিখের প্রবল বৃষ্টির কারণে সৃষ্ঠ দুর্যোগকে সকলের সস্মিলিত অংশ গ্রহনে কিভাবে কাটিয়ে উঠা যায় তার বাস্তব প্রমাণ হচ্ছে রাঙামাটির সাম্প্রতিক উদ্যোগ। তিনি এ কঠিন সময়ে সকলকে একত্রিত করে ক্ষতিগ্রস্থদের আশ্রয় কেন্দ্রে প্রেরণ.ভগ্ন প্রায় যোগাযোগ ব্যবস্থার মধ্যেও সমগ্র জেলায় খাদ্য দ্রব্যসহ অন্যান্য বাজার সামগ্রির দ্রব্যমূল্যর স্থির রাখার লক্ষে বিকল্প যোগাযোগ ব্যবস্থা হিসেবে রাঙামাটি-কাপ্তাই নৌ রুটে লঞ্চ সার্ভিস চালু করে জেলা প্রশাসক ও সংশ্লিষ্টদের সকলেরই প্রশংসার দাবীদার হয়েছেন।


জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান বলেন, রাঙামাটি দুর্যোগ ব্যবস্থা মোকাবেলার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যলয় থেকে শুরু করে বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় এবং চট্টগ্রাম ও দেশের অন্যান্য অঞ্চলের মানবতাবাদী ও সুহৃদয় ব্যক্তিরা আন্তরিকতার সাথে এগিয়ে এসেছেন তা রাঙামাটিবাসীদের মনে চির জাগরিত থাকবে।


রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা বলেন, গেল ২ রাঙামাটির লংগদুতে পাহাড়ীদের বাড়ীঘরে আগুন দেয়ার পর যে পাহাড়ী-বাঙালীর মধ্যে উত্তেজনা ও অবিশ্বাস বিরাজ করছিল সেই রাঙামাটির জেলারই জেলা সদরে পাহাড় ধসের ঘটনার সময় এক বাঙালী যুবক হাসপাতালে একজন পাহাড়ী যুবককে নিয়ে এসে চিকিৎসককে আহ্বান জানান। সে জানতো না অনেক অনেক দুর থেকে বয়ে নিয়ে এ পাহাড়ী যুবকটি অনেক আগেই প্রাণ ত্যাগ করেছে এভাবেই প্রাকৃতিক ঘটনা দুর্ঘটনাগুলোকে সহিংস মানুষগুলো মানবতার প্রতি আকৃষ্ট হতে শিক্ষা দেয়।


সভায় ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব সত্যব্রত সাহ বলেন,সম্প্রতি পাহাড় ধসের ঘটনা কি কারণে ঘটেছে, তার উত্তোরনের উপায় খুজে বের করে সরকারের কাছে সুপারিশমালা আকারে পেশ করা হবে। তিনি আরো বলেন, প্রয়োজনবোধে এ কমিটি আরো কয়েকবার এসমস্ত এলাকায় সফলে আসবেন এবং এখানকার স্থানীয়দেও মতামত গ্রহন করে বাস্তব উপায় নির্ধারন করে সুপারিশ করবে। তিনি আরো গঠিত এ কমিটি রাঙামাটিসহ চট্টগ্রাম কক্সবাজার,বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি সফর করবেন।


এদিকে, পাহাড় ধসের ঘটনার পর আবারও দিনেরাতে থেমে থেমে বৃষ্টিপাতের কারণে রাঙামাটিতে বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের আশংকা করা হচ্ছে। দুযোর্গের ২২ দিনের মাথায় পাহাাড় ধসের ঘটনায় রাঙামাটি শহরের বিভিন্ন কেন্দ্রে আশ্রয় নেয়া কিছু পরিবার নিজ উদ্যোগে বাড়ীতে ফিরে গেলেও গেল সোমবার ও মঙ্গলবারের থেমে থেমে বৃষ্টিপাতের কারণে তাদের অনেকেই নতুন করে আশ্রয় কেন্দ্রে ফিরেছেন।


অপরদিকে, সড়কে হালকা যান চলাচল ব্যবস্থা টিক রাখতে সড়ক বিভাগের রাতদিন কাজ করে যাচ্ছেন। তবে বৃষ্টির কারণে কাজের বিঘœ হচ্ছে। রাঙামাটি-চট্টগ্রাম সড়কের ধসে পড়া সাপছড়িতে মঙ্গলবার থেকে বেইলী ব্রিজের কাজ শুরু করেছে রাঙামাটি সড়ক ও জনপথ বিভাগ।


সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ এমদাদ হোসেন জানান, বৃষ্টির কারণে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কের ৭ থেকে ৮ কিঃমিঃ সড়কে মাটি ভরাটের কাজ কিছুটা ব্যাঘাত সৃষ্টি ও মেরামত কাজের গতিও থেমে গেছে। প্রায় আড়াই কোটি টাকা ব্যয়ে বেইলী ব্রিজের কাজ ৩/৪ সপ্তাহের মধ্যে শেষ হবে বলে জানান। এটি তৈরি হলে এই সড়ক দিয়ে ভারী যান চলাচল শুরু করা সম্ভব হবে।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

 

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ