• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির রাঙামাটি ইউনিটের সৃষ্ট পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সন্মেলন                    মানিকছড়িতে কীটনাশকযুক্ত মশারী বিতরণ উদ্বোধন                    প্রতিবন্ধীদের পাশে খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক ও দুই জনপ্রতিনিধি                    খাগড়াছড়িতে জেলা পরিষদের মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত                    খাগড়াছড়ি জেলা ফুটবল লীগের ড্র অনুষ্ঠিত                    বাঘাইছড়িতে কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়ন শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন                    কাপ্তাইয়ে পরিবেশ বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত                    কাপ্তাইয়ে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন অভিযান                    রাবিপ্রবি’র প্রথম বর্ষ সম্মান শ্রেণীতে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়ার বিজ্ঞপ্তি                    শুক্রবারের মধ্যে দোষীদের গ্রেফতার করা না হলে রাঙামাটি শহরে বর্জ্য অপসারণ বন্ধের হুমকি                    নাইক্ষ্যংছড়িতে দুই ব্যক্তিকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা                    বান্দরবানে ঐতিহ্যবাহী রাজপূণ্যাহ শুরু ২১ ডিসেম্বর                    পাহাড় ধসের ঘটনায় রাঙামাটি সদর উপজেলায় নিহত পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান                    প্রায় চার মাস পানিতে ডুবে থাকার পর রাঙামাটি পর্যটনের ঝুলন্ত সেতু জেগে উঠেছে                    খাগড়াছড়িতে ব্র্যাকের উদ্যোগে কীটনাশকযুক্ত মশারী বিতরণ                    চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতার উপর হামলাকারীে শাস্তির দাবীতে খাগড়াছড়িতে মানবন্ধন                    রাঙামাটিতে শিক্ষা বিষয়ক কর্মশালা                    জনসংহতি সমিতি অস্ত্র রাজনৈতিকের উপর নির্ভরশীল-দীপংকর তালুকদার                    দুটি কিডনি নষ্ট নুর উদ্দিনকে বাচাতে এগিয়ে আসুন                    কাপ্তাইয়ে বাল্যবিবাহ,যৌতুক, নারী ও শিশু নির্যাতন পাচাররোধে এক মহিলা সমাবেশ                    দীঘিনালায় ইউপিডিএফ কার্যালয়ের আসবাবপত্রে অগ্নিসংযোগ                    
 

লংগদুর অগ্নিসংযোগের ঘটনায় গঠিত মন্ত্রী পরিষদেও তদন্ত কমিটির কাছে বিশিষ্টজনরা
পার্বত্য চট্টগ্রামে বিচার হীনতা সংস্কৃতি থাকায় একের পর এক সাম্প্রদায়িক হামলা হচ্ছে

বিশেষ প্রতিনিধি : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 07 Jul 2017   Friday

লংগদুতে পাহাড়ীদের বাড়ীঘরে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মন্ত্রী পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির  সাথে পার্বত্য চট্টগ্রামের বিশিষ্টজনদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

 

তদন্ত কমিটির কাছে পার্বত্য চট্টগ্রামের বিশিষ্টজনরা বলেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে বিচার হীনতা সংস্কৃতি থাকায় একের পর এক সাম্প্রদায়িক হামলা হচ্ছে। এ হামলায় প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা হয় না। ফলে এরা অপরাধ কর্মকান্ড সংগঠিত করার সাহস পায়। উৎসাহিত হয়ে তারা পুনরায়  হামলা, ভাংচুর, লুঠপাত ও অগ্নিসংযোগ চালায়। এসব অপরাধ কর্মকান্ড বন্ধ করতে হলে অপরাধীদের অবশ্যই আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে হবে।

 

প্রসঙ্গত: গেল ২ জুন লংগদুতে তিনটি পাহাড়ী গ্রামে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মন্ত্রী পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটি গেল বৃহস্পতিবার রাঙামাটিতে সফরে আসেন। 

 

বৈঠকে  তদন্ত কমিটির মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, চট্টগ্রাম অঞ্চলের স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক দীপক চক্রবর্তী, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব মঞ্জুরুল আলম, এবং রাঙামাটি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আবু সাহেদ চৌধূরী। কমিটির অন্য সদস্য চট্টগ্রামের ডিআইজির প্রতিনিধি এম এ মাসুদ খান উপস্থিত ছিলেন না। পার্বত্য চট্টগ্রামের বিশিষ্টজনদেও মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক কমিটির সভাপতি গৌতম দেওয়ান,  অধ্যাপক মংসানু চৌধুরী, সাবেক জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্য নিরূপা দেওয়ান, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের পার্বত্য অঞ্চল সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা।

 

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, বিশিষ্টজনেরা তদন্ত কমিটিকে বলেছেন,পার্বত্যাঞ্চলের ‘জাতিগত, সাংস্কৃতিক ও ভৌগোলিক বৈশিষ্ট্য নির্ভর ভিন্ন জীবন ব্যবস্থা’কে আমলে না নিয়ে ৮০ দশকে সমতল অঞ্চল থেকে পার্বত্যাঞ্চলে জন-স্থানান্তর প্রক্রিয়া শুরু করে সরকার। এ নীতির কারণে  ১৯৮০ সাল থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত আদিবাসীদের উপর কম করে হলেও ১৮টির মতো সাম্প্রদায়িক হামলা হয়েছে।  এতে হাজারের অধিক নিরীহ মানুষ মারা পড়ে। অথচ  এসব ঘটনার একটিরও বিচার হয়নি। অপরাধীরা বার বার পার পেয়ে গেছে।

 

১৯৮৯ সালেও লংগদুতে সাম্প্রদায়িক হামলা হয়। ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়। অনেককে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার বিচার হয়নি। ফলে এরা আরও অপরাধ করতে উৎসাহি হয়েছে।

 

লংগদুর সাম্প্রতিক ঘটনায় বর্ণনা করে  পার্বত্য চট্টগ্রামের বিশিষ্টজনরা বলেন, লংগদুতে একের পর এক গ্রামে অগ্নিসংযোগের সময় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী উপস্থিত ছিল। এর দায় সেখানকার আইন শৃঙ্খলা বাহিনী এড়াতে পারে না। তাদের ভুমিকা নিরপেক্ষ ছিল না।

 

বেঠকে বিশিষ্জনরা দীর্ঘমেয়াদে করণীয়  হিসেবে পার্বত্য চুক্তির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের রূপরেখা ঘোষণা করে তা বাস্তবায়ন এবং জন-স্থানান্তর নীতির অধীনে আনীত সকল বসতি স্থাপনকারীদেরকে পার্বত্য চট্টগ্রামের বাইরে সম্মানজনক পুনর্বাসন প্রদান করার পরামর্শ দেন।

 

সূত্র আরো জানায় বৈঠকে তদন্ত কমিটির কাছে একটি লিখিত বক্তব্য দেওয়া হয়। এতে লংগদু ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা।  ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারবর্গের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে সেই ভিত্তিতে পুনর্বাসন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা। পার্বত্য জেলা পরিষদ আইনের ৬২ ধারা অনুসারে অবিলম্বে পার্বত্য জেলা পরিষদের অধীনে স্থানীয় পুলিশ-এর কার্যক্রম শুরু করাসহ ৭ টি দাবী তুলে ধরা হয়।

 

উল্লেখ্য গেল ১ জুন দিঘীনালা-খাগড়াছড়ি সড়কের খাগড়াছড়ি সদর থানার চার মাইল এলাকায় স্থানীয় যুবলীগ নেতা নুরুল ইসলাম নয়নের লাশ উদ্ধার করা হয়।  তিনি মোটর সাইকেলে ভাড়ায় যাত্রী নিয়ে লংগদু থেকে  খাগড়াছড়িতে গিয়েছিলেন। গেল ২জুন লংগদুর বাট্ট্যাপাড়া থেকে  লংগদু সদর পর্যন্ত নয়নের লাশ নিয়ে স্থানীয় বাঙালীরা মিছিলের সময় তিনটিলা,মানিকজোড় ছড়া ও বাট্টাপাড়ায় পাহাড়ীদের ঘর বাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করে। এতে কমপক্ষে সরকারী হিসাব অনুযায়ী ২১২টি পাহাড়ী ঘরবাড়ি পুড়ে যায়। এসময় আগুনে পুড়ে মারা  যান গুনমালা চাকমা নামে এক বৃদ্ধা।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ