• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
বাল্য বিবাহের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে                    বজ্রপাত থেকে রক্ষায় রাঙামাটিতে একযোগে দুই লক্ষ তাল বীজ রোপণ                    ১৪ বছর পর কাপ্তাই প্রেস ক্লাবের বৈঠক!                    রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কেউই বিভ্রান্তি ছড়াতে না পারে সে ব্যাপারে সকলকে সজাগ থাকতে হবে-বৃষকেতু চাকমা                    বিলাইছড়িতে দশ হাজার তাল বীজ রোপণ                    কর্ণফুলী ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠন                    কাপ্তাইয়ে পাহাড় ও ভুমি ধসে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে আর্থিক সহায়তা প্রদান                    কাপ্তাইয়ে ৪২ টি স্পটে একযোগে ১০ হাজার তাল বীজ রোপণ                    কর্ণফুলী ডিগ্রী কলেজের ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন                    রাঙামাটিতে মালবাহী ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দোকাঘরে ঢুকে ২ জন নিহতঃ আহত ৭                    বিশ্ব পর্যটন দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে রাঙামাটিতে প্রস্তুতিমূলক সভা                    হিজরি নববর্ষকে রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনের দাবি                    বজ্রপাত থেকে রক্ষা পেতে কাপ্তাইয়ে রোপন করা হবে১০ হাজার তাল বীজ                    কাপ্তাইয়ে সাংস্কৃতিক একাডেমীর সংগীত পরীক্ষায় উর্ত্তীন ছাত্র-ছাত্রীদের সনদপত্র বিতরন                    লংগদুতে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সাড়ে তিন মাসেও ক্ষতিগ্রস্তরা বসত ভিটায় ফিরতে পারেনি                    খাগড়াছড়িতে দরিদ্র শিশু ও নারীদের মাঝে রামকৃষ্ণ মিশনের বস্ত্র বিতরণ                    রাঙামাটিতে বজ্রপাতের আঘাত প্রতিরোধে দুই লক্ষ তাল বীজ রোপন করা হবে                    খাগড়াছড়িতে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে আওয়ামীলীগে অসন্তোষ                    রাঙামাটিতে এটুআই প্রোগ্রামের দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালা                    খাগড়াছড়িতে শিক্ষক নিয়োগ বাতিলের দাবিতে শিক্ষামন্ত্রী বরাবর সম্মিলিত ছাত্রসমাজের স্মারকলিপি                    রাঙামাটিতে শারদীয় দূর্গা উৎসব সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে পৌরসভার আর্থিক সহায়তা                    
 

পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্থ ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয় ভবন সংস্কারে স্বেচ্ছা শ্রমে শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী

স্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 14 Jul 2017   Friday
no

no

সরকারী সহায়তা অপেক্ষায় না থেকে স্বেচ্ছা শ্রমে শিক্ষার্থী অভিভাবক ও এলাকাবাসী পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্থ রাঙামাটির ঘাগড়া বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ভবনের সংস্কারের এগিয়ে এসেছেন। শুক্রবার শত শত এলাকাবাসী বিদ্যালয় ভবন রক্ষায় বেড়িবাঁধ দেয়াসহ অন্যান্য মেরামতের কাজ শুরু করেন।


বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, গেল ১৩ জুন পাহাড় ধসে ও পানির ঢলের কারণে রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নের একমাত্র উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘাগড়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের একাংশ ভেঙ্গে যায়। এছাড়া বিদ্যালয় ভবনে থাকা আসবাবপত্র কম্পিউটার ল্যাবসহ নানান শিক্ষা সামগ্রি নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি বিদ্যালয় মাঠে মাটি জমে গেছে। ইতোমধ্যে বিদ্যালয় ভবনের অষ্টম,নবম ও দশম শ্রেনীর শ্রেনী কক্ষ পরিত্যক্ত ঘোষনা করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ফলে বিদ্যালয়ের পরীক্ষা গ্রহন করাসহ পাঠদানে মারাত্নক ব্যাহত হচ্ছে। এ বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও কোন উদ্যোগ না নেয়ায় বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিদ্যালয় ভবন রক্ষায় এগিয়ে আসার জন্য এলাকার লোকজনদের আহ্বান জানান। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী,শিক্ষক, অভিভাবক ও এলাকার শিক্ষানুরাগীরা সাড়া দেন।

 

শুক্রবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কয়েক শত শিক্ষার্থী, শিক্ষক,অভিভভাবক ও শিক্ষানুরাগীরা স্বেচ্ছা শ্রমে বিদ্যালয়ের পাশে পানির ঢলে ভেঙ্গে যাওয়া স্থানে বস্তায় বালি দিয়ে বেড়িবাধ তৈরী করছেন। সেখানে স্বেচ্ছা শ্রমে কাজ করতে আসা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানান, পাহাড় ধস ও পানির ঢলে কারণে বিদ্যালয় ভবনে একাংশ ভেঙ্গে যাওয়ায় পাঠদানে মারাত্নক ব্যাহত হচ্ছে। তাই সরকারীভাবে কোন সহায়তা অপেক্ষা না থেকে বিদ্যালয় ভবন রক্ষায় বাধ নির্মাণসহ মাঠে জমে যাওয়া মাটি অপসারনের জন্য স্বেচ্ছা শ্রমে কাজ করছি।


বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ কামাল উদ্দীন জানান, প্রবল বৃষ্টিপাতে পাহাড়ের মাটি ও পানির ঢলে বিদ্যালয়ের ভবনের একাংশ ভেঙ্গে যায়। এচাড়া বিদ্যালয়ের আসবাবপত্রসহ আন্যান্য সামগ্রি নষ্ট হয়েছে।


ঘাগড়া ইউপি’র ৭নং ওয়ার্ড মেম্বার ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য পূর্ন ধন চাকমা জানান, প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ ভবন রক্ষায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, প্রাক্তন শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা স্বেচ্ছা শ্রমে কাজ করে যাচ্ছেন।


ঘাগড়া বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়,প্রধান শিক্ষক চন্দ্রা দেওয়ান বলেন, প্রাকৃতি দুর্যোগের কারণে বিদ্যালয় ভবনের পেছনে বেড়িবাধ ভেঙ্গে গিয়ে ভবনের একাংশ সম্পুর্ণ বিধ্বস্ত হয়েছে। ফলে ভবনের একটি অংশ সম্পূর্ন পরিত্যক্ত করতে হয়েছে। বর্তমানে বিদ্যালয়ে পাঠদানে এবং বিদ্যালয়ে পরীক্ষা নিতে সমস্যা হচ্ছে।

 

তিনি আরো জানান, বিদ্যালয় ভেঙ্গে যাওয়ার ব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকের কাছে সহায়তা চাওয়া হলেও এখনো কোন সাড়া মিলেনি। তাই সরকারী সহায়তার অপেক্ষা না থেকে এলাকাবাসী শিক্ষার্থীসহ সকল স্তরের লোকজনদের কাছে সহায়তা চাওয়ার পর সাড়া দিয়েছেন। তারা স্বেচ্ছা শ্রমে বিদ্যালয় ভবন রক্ষায় বেড়িবাঁধ নির্মান, মাঠ থেকে কাঁদা মাটি অপসারণ করছেন।


উল্লেখ্য, গেল ১৩ জুন পাহাড় ধসে রাঙামাটি জেলায় ৫ সেনা সদস্যসহ ১২০ জনের মৃত্যূ হয়। এ ঘটনায় সম্পুর্ণ ঘরবাড়ি বিধস্ত হয় ১ হাজার ২৩১ পরিবার। ক্ষতিগ্রস্থ হয় বিভিন্ন সরকারী ভবন,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ ইত্যাদি।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ