• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
রামগড়ে বিজিবি’র অভিযানে অবৈধ কাঠ আটক                    খাগড়াছড়িতে ত্রিপুরা কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় এইচডব্লিউ`র নিন্দা ও প্রতিবাদ                    বালুখালীতে হিল ফ্লাওয়ারে উদ্যোগে দুর্যোগ মোবেলায় সচেতনতা সৃষ্টিতে সমন্বয় সভা                    রাঙামাটিতে ঐতিহ্যবাহী আহলপালনি উপলক্ষে জাক’র নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন                    খাগড়াছড়িতে কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় আটক ৫, জড়িতদের গ্রেফতারের দাবীত বিক্ষোভ                    পার্বত্য প্রথাগত আইনগুলো যুগোপযোগী করতে হবে                    খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ পার্কে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ                    রামগড়ে ইয়াবাসহ এক পাচারকাীকে আটক করেছে বিজিবি                    কাপ্তাইয়ের রেশমবাগান-বারঘোনা সড়ক যোগাযোগ বন্ধ, জনদুর্ভোগ চরমে                    লংগদুতে জেলেদের ৪০কেজি করে চাল প্রদানের দাবীতে মানবন্ধন                    আন্তর্জাতিক যোগ ব্যায়াম দিবস উপলক্ষে রাঙামাটিতে র‌্যালী ও আলোচনা সভা                    মাটিরাঙ্গায় পাহাড়ি ঢলে সেতু ধ্বস,১৫ গ্রামের মানুষের জীবনে অচলাবস্থা                    রামগড়ে তথ্য অফিসের প্রেস ব্রিফিং                    রামগড়ে স্বাস্থ্য বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত                    রামগড়ে অভিযানে ভারতীয় মদ ও ইয়াবা উদ্ধার করেছে বিজিবি                    মহালছড়িতে ৩ গ্রামবাসীকে অপহরণের নিন্দা ও প্রতিবাদ ইউপিডিএফের                    রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মাসিক সভা                    জুরাছড়িতে জেলা পরিষদের নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ                    রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের বাঘাইছড়িতে বন্যা কবলিত স্থান পরিদর্শন                    ঈদের ছুটিতে খাগড়াছড়ির বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের ভীড়                    বাঘাইছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে এমএন লারমা গ্রুপের জেএসএস`র এক সদস্য নিহত                    
 

রাঙামাটিতে পাহাড় ধসের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থরা দুই মাসেও পূর্নবাসিত হয়নি

স্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 13 Aug 2017   Sunday

রাঙামাটিতে ভয়াবহ পাহাড় ধসের ঘটনায় দুই মাস পূর্ণ হল রোববার । আশ্রয় কেন্দ্রে থাকা ক্ষতিগ্রস্থরা এখনো পূর্নবাসিত হয়নি। ফলে ক্ষতিগ্রস্থ লোকজন আশ্রয় কেন্দ্রে মানবেতর জীবন যাপন করছে। তবে প্রশাসন বলছে মন্ত্রনালয় থেকে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ পাওয়া গেলে ও বৃষ্টিপাত কমে গেলে ক্ষতিগ্রস্থদের দ্রুত পূর্নবাসন করা হবে। 

 

জানা যায়, গেল ১৩ জুন ভারী বর্ষনে পাহাড় ধসে রাঙামাটি সদর,জুরাছড়ি,কাপ্তাই,কাউখালী ও বিলাইছড়ি এলাকায় দুই সেনা কর্মকর্তা ও তিন সেনা সদস্যসহ ১২০ জনের মৃত্যূ হয়। এ ঘটনায় রাঙামাটি শহরের ভেদেভদী, যুব উন্নয়ন বোর্ড শিমুলতলী,রুপনগর, নতুন পাড়া, মুসলিম পাড়া,মোনঘর এলাকা,ওমদা মিয়া হিলসহ বিভিন্ন এলাকায় লোকজন ক্ষতিগ্রস্ত হন। ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য শহরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ১৯টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়। এসব আশ্রয় কেন্দ্রে ৩ হাজার ২শ জন নারী-পুরুষ ও শিশু আশ্রয় নিয়েছিল। পরবর্তীতে পরিস্থিতি কিছুটা উন্নত হওয়ায় বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে থাকা কিছু সংখ্যক পরিবার নিজ নিজ বাড়ী ঘরে ফিরে যাওয়ায় ৬টি আশ্রয় কেন্দ্র করা হয়। বর্তমানে এসব আশ্রয় কেন্দ্রে নারী-পুরুষ ও শিশুসহ ১৩ শ ২৬ জন আশ্রয়ে রয়েছে। এসব আশ্রিত লোকজনদের মাঝে দুবেলা খাবারসহ অনান্য সহায়তা দেয়া হচ্ছে। পাহাড় ধসের ঘটনায় রাঙামাটি শহরে ৬টি আশ্রয় কেন্দ্রে থাকা ক্ষতিগ্রস্থদের লোকজনদের ঘটনার দুই মাসেরও পূর্নবাসিত হয়নি। এসব আশ্রয় কেন্দ্রে থাকা লোকজন মানবেতর জীবন যাপন করছে। এসব আশ্রয় কেন্দ্র হল রাঙামাটি জিমনেসিয়াম, মারী স্টেডিয়াম, মোনঘর ভাননা কেন্দ্র, রাঙামাটি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের নবনির্মিত ছাত্রাবাস  তবলছড়ি হিল কোয়ার্টার। 


রাঙামাটি স্টেডিয়ামের ড্রেসিং রুম, রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের নবনির্মিত ছাত্রাবাস ও রাঙামাটি জিমনেসিয়াম আশ্রয় কেন্দ্রে থাকা ক্ষতিগ্রস্থরা জানান, আশ্রয় কেন্দ্রে থাকতে থাকতে তারা অধৈর্য্য হয়ে পড়েছেন। প্রশাসনের পক্ষ থেকে কবে তাদের পূর্নবাসন করা হবে কিছুই বলছে। কবে তাদের পূর্নবাসন করা হবে বা তারা নিজেদের ভিটেমাটিতে ফিরতে পারবেন তারাই কিছ্ইু জানতে পারছেন না। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এভাবে কত দিন আশ্রয় কেন্দ্রে পড়ে থাকবেন। তাদের পরিবারের ভবিষ্যত রয়েছে। তারা প্রশাসনের কাছে দ্রুত পূর্নবাসনের দাবী জানিয়েছেন।


জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান বলেন, পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্থ লোকজনের সংখ্যা বেশী। তাই মন্ত্রনালয়ের কাছে অধিক পরিমাণের ঢেউটিন ও অর্থ বরাদ্দের সহায়তা চেয়েছি। তবে ভারী বৃষ্টিপাত কমে গেলে অনুকুল পরিস্থিতি ফিরে আসলে এবং মন্ত্রনালয় থেকে বরাদ্দ পাওয়া গেলে ক্ষতিগ্রস্থদের দ্রুত পূনর্বাসন করা হবে। ইতোমধ্যে কাউখালী ও কাপ্তাইয়ের ক্ষতিগ্রস্থদের ঢেউটিন ও অর্থ দিয়ে পূর্নবাসন করা হয়েছে বলে তিনি জানান।


তিনি আরো বলেন,পাহাড় ধসের কারণে কাপ্তাই হ্রদের তলদেশে প্রচুর পরিমাণে পলি মাটি জমে যাওয়ায় হ্রদের পানি সহজে উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে হ্রদের আশপাশ এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। এ জন্য হ্রদের কিছু কিছু পয়েন্টে ড্রেজিং করে নাব্যতা রক্ষা করতে হবে। তা না হলে আগামী শুস্ক মৌসুমে ৪ থেকে ৫টি উপজেলার সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


উল্লেখ্য,গেল ১৩ জুন ভারী বর্ষনের কারণে পাহাড় ধসে রাঙামাটিতে ৫ সেনা সদস্যসহ ১২০ জনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ হয় ১৮ হাজার ৫৫৮টি পরিবার। এর মধ্যে ১হাজার ২৩১টি পরিবারের বাড়ী ঘর সম্পুর্ণ বিধস্ত হয়।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ