রাঙামাটিতে দুদকের মামলায় যুবলীগ নেতা মুজিবুর রহমান দীপু কারাগারে

Published: 31 Oct 2017   Tuesday   

 

চেক জালিয়াতির মামলায় রাঙামাটিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের(দুদক) দায়ের করা যুবলীগ নেতা মুজিবুর রহমান দীপুকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার জেলা দায়রা জজ আদালতে মামলার হাজিরা দিতে গিয়ে আদালত তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর প্রেরণের নির্দেশ দেন।


দুদকের পার্বত্য চট্টগ্রাম সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, এতদিন দুদকের দায়ের করা চেক জালিয়াতি মামলায় মুজিবুর রহমান উচ্চ আদালত থেকে আর্ন্তবর্তীকালীন জামিনে ছিলেন। জামিনের মেয়াদ হলে মঙ্গলবার মুজিবুর রহমান জামিন নিতে রাঙামাটি জজ আদালতে হাজির হন। এসময় দুদকের কর্মকর্তারা তার জামিনের তীব্র বিরোধিতা তরায় তার জামিন না মঞ্জু করে আদালত জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন।


সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ৮ কোটি টাকার বাস্তবায়নাধীন রাঙামাটি শহরের আসামবস্তির নারিকেল বাগান এলাকায় রাঙামাটি পাবলিক কলেজের ভবন নির্র্মানের জন্য কাজ পান মেসার্স মাইশা ট্রেডার্স-এর সত্বাধিকারী ও জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান দীপু। টেন্ডার আহ্বানকারী প্রতিষ্ঠান পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের কাছে মুজিবুর রহমান রূপালী ব্যাংকের তবলছড়ি শাখা থেকে চেক জালিয়াতি করে ৪১ লাখ ২০ টাকার ব্যাংক গ্যারান্টির সার্টিফিকেট জমা দেন। পরে খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারে ওই হিসাব নম্বরে কোন টাকাই জমা নেই।

 

এতে দুদক রাঙামাটির কাছে অভিযোগ দায়ের পর দুদকের কর্মকর্তা তদন্ত করে চেক জালিয়াতির সত্যতা পান। পরে দুদকের পক্ষ থেকে গত বছর ১৬ নভেম্বর মুজিবুর রহমানকে ১ নম্বর ও রুমা বড়–য়াকে ২ নম্বর আসামী করে রাঙামাটি কতোয়ালী থানায় মামলা দায়ে করে। ওই দিনই ব্যাংকের তবলছড়ি শাখা ভবন থেকে দুদুকের কর্মকর্তারা কোতয়ালী পুলিশের সহায়তায় রুমা বড়ুয়াকে গ্রেফতার করলেও মুজিবুর রহমান পলাতক ছিলেন। পলাতক থাকা অবস্থায় ওই যুবলীগ নেতা উচ্চ আদলত থেকে আর্ন্তবর্তীকালীন জামিন ছিলেন।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

 

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : [email protected]
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত