বরকলে বিভিন্ন পাড়া কেন্দ্রে খেজুর বিতরণ

Published: 28 Jan 2020   Tuesday   

আশিকা ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েট ও ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রামের যৌথ উদ্যাগে মঙ্গলবার রাঙামাটির বরকলে  স্কুল ফিডিং কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিভিন্ন পাড়া কেন্দ্রে খেজুর বিতরণ করা হয়েছে।

 

আইমাছড়া ইউনিয়নে জগন্নাথছড়া পাড়া কেন্দ্রে খেজুর বিতরণ কর্মসূচী উদ্ভোদন উপলক্ষে পাড়া কেন্দ্রের কক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিধান চাকমা।   

           

আশিকা ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েটের উপ-পরিচালক কক্সি তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুচরিতা চাকমা ও ঢাকা প্রধান কার্যালয় ওয়ার্ল্ড ফুডের প্রোগ্রাম এ্যাসোসিয়েট ক্যাপাসিটি স্ট্রেংদেনিং মাসুমা চৌধুরী। 

 

এসময় আইমাছড়া ইউনিয়নের ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য (সংরক্ষিত)  শুভ মালা চাকমা, উপজেলা টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের সহকারী ব্যবস্থাপক তিমির বরন চাকমা, স্কুল ফিডিং প্রোগ্রাম, ওয়ার্ল্ড ফুডের ফিল্ড মনিটর রিনি চাকমা ও ফিল্ড মনিটর স্নেহ কুমার চাকমা আইমাছড়া ইউনিয়ন ১৫৪ নং মৌজার কার্বারী ও এসএমসি কমিটির সভাপতি জীবন মোহন চাকমা সহ   বিভিন্ন পাড়া কেন্দ্রের পাড়াকর্মী, মাঠ সংগঠক,ছাত্র-ছাত্রী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। 

 

সভা শেষে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির সহায়তায় ও আশিকা ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েটের ব্যবস্থাপনায় জগন্নাথছড়া পাড়া কেন্দ্রের ১৬ শিক্ষার্থীদের মাঝে ১কেজি করে খেজুর বিতরণ করা হয়। একইভাবে অন্যান্য পাড়া কেন্দ্রেও শিক্ষার্থীদের মাঝে খেজুর বিতণের ব্যবস্থা করা হয়। এসব খেজুর বিতরণ করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিধান চাকমা ও ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রামের ক্যাপাসিটি স্ট্রেংদেনিং মাসুমা চৌধুরী।                                                                            

প্রধান অতিথি বক্তব্যে বিধান চাকমা বলেন, পরিচর্যা হল শরীর সুষ্ঠ থাকার মূল চাবিকাঠি। ভবিষ্যতে পরিপক্ব মানুষ হিসেবে উপহার দিতে সকল মায়ের এখন থেকে বাচ্চাদের পরিচর্যা করতে হবে এবং নিজেকে সুষ্ঠ রাখতে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।  

 

তিনি  আরো বলেন বাচ্চারা যাতে রোগাগ্রস্থ না হয় তাদের সচেতনতার সাথে পুষ্টিকর খাদ্য দিয়ে পরিচর্যা করতে হবে। অার সমাজকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিতে সমাজের অগ্রসর অংশ হিসেবে স্ব-স্ব এলাকায় সচেতনতার বৃদ্ধির লক্ষ্যে নানানভাবে অবদান রাখতে হবে এবং তৃণমূল পর্যায়ে সচেতনমূলক বার্তা পৌঁছে দেয়ার নির্দেশ দেন  তিনি।

 

বিশেষ অতিথি বক্তব্য মাসুমা চৌধুরী বলেন, জীবাণুমুক্ত রাখতে বাচ্চাদের সচেতন করা দরকার। এমনকি খাওয়ার অাগে এবং পরে কি কি করা উচিৎ সে বিষয়ে বাচ্চাদের সচেতন করা এবং পরিবারের সবাইকে সচেতন হওয়া দরকার। 

 

তিনি বলেন স্কুলের বাচ্চাদের গুণগত পুষ্টি প্রদান ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে স্কুল ফিডিং প্রকল্পের অাওতায় খেজুর বিতরণের উদ্যোগটি ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম কাজটি হাতে নিয়েছে। তিনি বলেন খেজুর রক্ত তৈরি করার একটি উৎস। বাচ্চাদের জন্য এটি খুবই উপকারী।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

       

 

উপদেষ্টা সম্পাদক : সুনীল কান্তি দে
সম্পাদক : দিশারি চাকমা
মোহাম্মদীয়া মার্কেট
কাটা পাহাড় লেন, বনরুপা
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।
ইমেইল : info@hillbd24.com
সকল স্বত্ব hillbd24.com কর্তৃক সংরক্ষিত