• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
বর্তমান সরকারই দেশের ও শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করেছে-দীপংকর তালুকদার এমপি                    রাঙামাটিতে বিভিন্ন ক্লাবে অভিযান চালিয়ে ১২ জনকে জরিমানা                    সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ মুক্ত কাপ্তাই গড়া হবে-লেঃ কর্নেল তৌহিদ উজ্জামান                    পার্বত্য এলাকায় মোনঘর প্রতিষ্ঠানটি একটি বাতিঘর-দীপংকর তালুকদার এমপি                    সুভাষ চাকমা সভাপতি, পিন্টু চাকমা সাধারণ সম্পাদক ও ক্লিন চাকমা সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত                    চন্দ্রঘোনায় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে আরএইচস্টেপের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত                    পানছড়িতে পৌনে নয় কোটি টাকার প্রকল্প নেওয়া হয়েছে--বাসন্তী চাকমা এমপি                    রাঙামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় পানীয় জলের উৎস উন্নয়নের লক্ষ্যে জেলা পর্যায়ে এ্যাডভোকেসী সভা                    পার্বত্যাঞ্চলের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে                    রাঙামাটি প্রাণীসম্পদ দপ্তরে জেলা পরিষদের অর্থায়নে ভেটেরিনারি ঔষুধ বিতরণ                    রাঙামাটি পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পেলেন জামাল উদ্দিন                    পানছড়িতে ইপসা ‘শো’ প্রকল্পের পুরস্কার বিতরণ ও সম্মাননা প্রদান                    বাঘাইছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে এমএন লারমা গ্রুপের জনসংহতি সমিতির দুই কর্মী নিহত                    রাঙামাটিতে অ্যাকটিভ মাদার্স ফোরাম এর ভূমিকা ও করণীয় শীর্ষক কর্মশালা                    রাঙামাটিতে ৫৮ শতক জমির মালিকানা নিয়ে দুই দেওয়ানের পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন                    রাঙামাটিতে ধুমপান করার দায়ে ৬ব্যক্তিকে জরিমানা                    রুমা থেকে ৬ গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা                    রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে গুর্খা সম্প্রদায়ের সৌজন্য সাক্ষাৎ                    বিলাইছড়িতে বেতের ঝুড়ি ও পুঁতির শোপিস তৈরি প্রশিক্ষণ শুরু                    বিলাইছড়িতে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ কর্মশালা                    কাপ্তাইয়ে বঙ্গবন্ধু অনুর্ধ্ব ১৭ ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন কাপ্তাই ইউনিয়ন পরিষদ                    
 

রাঙামাটিতে যক্ষ্মা রোগ নির্মুলে শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক মতবিনিময় সভা

ষ্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 01 Sep 2019   Sunday

রোববার রাঙামাটিতে যক্ষ্মা রোগ নির্মুল করতে ও জনসচেতনতা বৃদ্ধি করে যক্ষ্মা রোগ প্রতিরোধে বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

বাংলাদেশ জাতীয় যক্ষ্মা নিরোধ সমিতি (নাটাব) আয়োজনে নাটাব রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সভাপতি এ কে এম মকছুদ আহমেদের সভাপতিত্বে রাঙ্গামাটি ডায়বেটিস হাসপাতাল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি সিভিল সার্জন শহীদ তালুকদার।

 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নাটাবের রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ জাহান মজুমদার, রাঙ্গামাটি বক্ষব্যাধি হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. সুশোভন দেওয়ান, নাটাবের প্রোগ্রাম অফিসার মোঃ হেলাল উদ্দিন।

 

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাঙ্গামাটি সিভিল সার্জন শহীদ তালুকদার বলেন, দেশের মোট জনংখ্যার ৫০ শতাংশের বেশী ব্যক্তির শরীরে সুপ্ত অবস্থায় কিছু রোগের জীবানু থাকে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পাওয়ার সাথে সাথে এইসব জীবানু মানুষের শরীরে আক্রান্ত করে থাকে। তাই এই রোগ প্রতিরোধ বিষয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে রাঙ্গামাটির বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে।

 

তিনি বলেন, বর্তমানে দেশের সকল উপজেলা স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র ও নিদিষ্ট এনজিও ক্লিনিকে ও নাটাবের মাধ্যমে যক্ষ্মা রোগ নির্ণয় ও রোগীদের ঔধষসহ চিকিৎসার সব ব্যবস্থা সরকার বিনামূল্যে প্রদান করছে। বিনামূল্যে এই রোগের চিকিৎসা রয়েছে তা পাড়া মহল্লা ও গ্রামের অনেক মানুষ এই বিষয়টি নিয়ে অবহিত নন। অথচ বিভিন্ন পেশার মানুষ এগিয়ে এলে ব্যাপকভাবে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করতে পারলে খুব কম সময়ের মধ্যে অন্যান্য রোগের মত এই রোগটি নিয়ন্ত্রণ এমনকি নির্মূল করা সম্ভব। এ ক্ষেত্রে মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও মাদরাসার সুপারগণ অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারে। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের এ বিষয়ে সচেতন করতে পারলে তাদের মাধ্যমে তাদের পরিবারসহ আশপাশের পরিবারগুলোর মধ্যে যক্ষ্মারোগ নিয়ন্ত্রণ করা সহজতর হবে।

 

তাই যক্ষ্মা রোগ নির্মূল করতে সম্মেলিত ভাবে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। সবাইকে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করে যেতে হবে। আর সম্মেলিত ভাবে কাজ করতে পারলে যক্ষ্মারোগ নিমূল করা সম্ভব।

 

সভাপতির বক্তব্যে নাটাবের সভাপতি এ কে এম মকছুদ আহমেদ বলেন, যক্ষ্মা রোগ নিয়ন্ত্রণে সরকার সর্বধরণের ব্যবস্থা গ্রহন করে চলেছে। বর্তমানে দেশের সকল উপজেলা স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র ও নিদিষ্ট এনজিও ক্লিনিকে ও নাটাবের মাধ্যমে যক্ষ্মা রোগ নির্ণয় ও রোগীদের ঔধষসহ চিকিৎসার সব ব্যবস্থা সরকার বিনামূল্যে প্রদান করছে। যক্ষ্মা রোগ দেখা দেয়া মাত্র তার চিকিৎসা গ্রহন করা প্রয়োজন। সচেতন নাগরিক যদি যক্ষ্মা রোগ সর্ম্পকে সচেতনতা সৃষ্টি করতে পারে তা হলে দেশে যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম তার অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে পারবে।

--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

 

 

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ