• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
দুই পিসিজেএসএস’র সংঘাত বন্ধের আহ্বানকে স্বাগত জানিয়েছে ইউপিডিএফ                    কাউখালীতে হাজার দর্শককে মাতিয়েছে, চাকমা ভাষার মঞ্চ নাটক ‘অপরাধ’।                    নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে রাঙামাটিতে অনলাইন ব্লাড ব্যাংক জীবন’র ৮ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন                    রাঙামাটিতে এমএন লারমার ৩৬ তম মৃত্যু বার্ষিকীর স্মরণ সভার আয়োজন                    জুরাছড়িতে এমএন লারমা’র মৃত্যুবার্ষিকী পালন                    সিঙ্গিনালা মৈত্রীপুর বৌদ্ধ বিহারে কঠিন চিবর দানোৎসব সম্পন্ন                    আলীকদমে চিকিৎসা সেবা দিল চট্টগ্রাম লায়ন্স ক্লাব                    নানিয়ারচরে গরীব ও অসহায় রোগীদের মাঝে বিনামূল্যে চক্ষু সেবা ও ঔষধ বিতরণ                    লাখো মানুষের সাধু সাধু ধ্বনির মধ্য দিয়ে রাঙামাটি রাজবন বিহারে কঠিন চীবর দনোৎসব সম্পন্ন                    রাঙামাটিতে পার্বত্যাঞ্চলের সর্ববৃহৎ জশনে জুলুছ                    রাঙামাটির রাজ বন বিহারে দুদিন ব্যাপী সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব কঠিন চীবর দানোৎসবের উদ্ধোধন                    শিশু ও নারী উন্নয়ন শীর্ষক নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা                    মিলাদুন্নবী (দঃ) উপলক্ষে রাঙামাটিতে শুক্রবার তিন পার্বত্য জেলায় সর্ববৃহৎ জশনে জুলুছ                    রাঙামাটিতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ পালিত                    ধুপ্যাচর ত্রিরত্ন বৌদ্ধ বিহারে ৩২তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত                    নারীদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে                    কুতুবদিয়া সদ্ধর্মোদয় বৌদ্ধ বিহারে কঠিন চীবরদান উদ্যাপন                    রাবিপ্রবি’র স্থাপন শীর্ষক প্রকল্পের বাস্তব অগ্রগতি পর্যালোচনা বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত                    বিলাইছড়িতে জাতীয় সমবায় দিবস উদযাপন                    পানছড়ি’র দেবগিরি বনবিহারে ৩-তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত                    রাবিপ্রবি’র স্থাপন প্রকল্পের বাস্তব অগ্রগতি সরেজমিনে পরিদর্শন করতে বিমক’র তিন সদস্য রাঙামাটিতে সফর                    
 

রাঙামাটিতে সামাজিক ও আচরণ পরিবর্তন যোগাযোগ বিষয়ক কর্মশালা

ষ্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 26 Sep 2019   Thursday

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের আওতায় স্থানীয় জনগণের অংশগ্রহণে সামাজিক ও আচরণ পরিবর্তন যোগাযোগের মাধ্যমে সরকার ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করতে বৃহস্পতিবার রাঙামাটিতে দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সভা কক্ষে কর্মশালায় প্রধান হিসেবে উপস্থিত অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক (উপ-সচিব) ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরীর সভাপতিত্বে কর্মশালায় গস্ট অব অনার হিসেবে স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক(অতিরিক্ত সচিব) দীপক চক্রবর্তী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক এবং রাঙামাটি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(শিক্ষা ও আইসিটি) শারমিন আলম, জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা দাউদ হোসেন চৌধুরী, ইউনিসেফ চট্টগ্রাম ডিভিশনের চীফ মাধুরী ব্যানার্জী, ইউনিসেফ চট্টগ্রাম ডিভিশনের অফিসার গিতা রানী দাশ, জুরাছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা, বিলাইছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরোত্তম তঞ্চঙ্গ্যা, টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক (অর্থ ও প্রশাসন) মোঃ জানে আলম। এসময় জুরাছড়ি ও বিলাইছড়ি উপজেলার জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।


কর্মশালায় মোট ১৫টি অগ্রাধিকার জীবন রক্ষাকারী আচরণ ও চর্চা নিয়ে অংশগ্রহণকারীরা বিশদভাবে আলোচনা করেন।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, সমতলের চাইতে পার্বত্য জেলাগুলো শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ’সহ বিভিন্ন দিক দিয়ে পিছিয়ে রয়েছে। দূর্গম এলাকার মানুষ স্বাস্থ্য সচেতনতার অভাবে মা ও শিশু মুত্যু, বাল্য বিবাহ, শিশুর পরিপূর্ণ বিকাশে যতœ, সামাজিক আচার আচরণ’সহ বিভিন্ন বিষয়ে অসচেতন। তাদের সচেতন করতে তিনি তৃণমূল পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি, সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তাসহ সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, প্রত্যন্ত অঞ্চলে এখনো সনাতন পদ্ধতিতে ধাত্রী দিয়ে বাচ্চা প্রসব ব্যবস্থা প্রচলিত রয়েছে। যার ফলে মা ও শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি থেকে যায়।


তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার প্রতিটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গর্ভবতী মায়েদের সুষ্ঠভাবে প্রসবের জন্য আলাদা কক্ষ, ঔষধপত্র, পরিপূর্ণ সরঞ্জাম ও চিকিৎসক নিয়োগ দিয়েছেন। অতি ঝুকিপূর্ণ হলে রোগীদের অন্যত্র রেফারের জন্য এম্বুলেন্স দিয়েছেন। সরকার কর্তৃক প্রদত্ত এসব সুযোগ সুবিধার তথ্যগুলো দুর্গম এলাকার প্রতিটি ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

 

কর্মশালায় গেস্ট অব অনারের বক্তব্যে দীপক চক্রবর্তী বলেন, আমরা আগামী প্রজন্মের কাছে ঋণী। কারণ আগামীতে এই প্রজন্মের শিশুরাই আমাদের দেশ পরিচালনা করবে। তাই তাদের জন্য বাসযোগ্য পৃথিবী আমাদের এখন থেকেই করে দিতে হবে। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে অদ্যাবধি ইউনিসেফ এ দেশের শিশুদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। তাদের কর্মকান্ডগুলো সতিই প্রসংসনীয়। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতার জন্মদিনটিকে জাতীয় শিশু দিবস ঘোষণা করে জাঁকজমকভাবে পালন করছে। এতেই বুঝা যায় বর্তমান সরকার শিশুবান্ধব সরকার।


তিনি আরো বলেন, প্রত্যন্ত এলাকার মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিদের আরো গতিশীল হতে হবে। বর্তমান সরকার স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করতে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, প্রত্যন্ত এলাকায় গণসচেতনতা সৃষ্টি করে সামাজিক ও আচরণ পরিবর্তনের মাধ্যমে শিশু, নারীসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে প্রান্তিক এলাকায় সরকারের কার্যক্রমগুলোকে আমাদের এগিয়ে নিতে হবে।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদক/সিআর.

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ