• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
বন্দুকভাঙ্গায় ১শ গরীব ও কর্মহীনদের ত্রাণ সামগ্রি বিতরণ করলেন ব্যবসায়ী তপন চাকমা                    রাঙামাটিতে ১০টাকা কেজি ওএমএস চাউল বিতরণ শুরু                    জুরাছড়িতে ২ ধামায়পাড়া গ্রামের চাকুরীজীবী সমাজের ত্রাণ বিতরণ                    সকলে মিলে সংকট উত্তোরণ ঘটাতে হবে-বাসন্তী চাকমা এমপি                    করোনা মোকাবেলায় রাঙামাটিতে আইন অমান্য করায় ৪ জনকে অর্থ দন্ড                    পানছড়ির হত দরিদ্রদের সহায়তায় সাংবাদিক সাজু                    বাঘাইছড়িতে জিপ-মোটর সাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেল আরোহী নিহত, আহত-২                    বরকলে কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যশস্য বিতরণ                    করোনা প্রতিরোধে দীঘিনালায় বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সেনাবাহিনীর প্রচারণা                    রাঙামাটিতে চম্পক নগর যুব সমাজের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ                    খাগড়াছড়িতে ১’শ ৩০ পরিবারকে লক্ষ্মী চাকমা’র ত্রাণ সহায়তা                    রাঙামাটিতে অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণ তুলে দিলেন দীপংকর তালুকদার এমপি                    দীঘিনালায় অসহায় মানুষের পাশে ইউপিডিএফ গণতন্ত্র                    কাপ্তাইয়ে যুবলীগ নেতা খুনের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন দীপংকর তালুকদার এমপি                    করোনায় প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে রাঙামাটিতে পুলিশ কঠোর অবস্থানে                    মহালছড়িতে কর্মহীন মানুষকে মনাটেক যাদুগানালা মৎস্য সমিতির খাদ্য সামগ্রী বিতণ                    বিলাইছড়িতে দুই শতাধিক লোকজনদের অর্থ সহায়তা প্রদান করেছে জেলা পরিষদ                    রাঙামাটিতে নতুন ৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে, ছাড়পত্র পেয়েছেন ১০২ জন                    বন্দুকভাঙ্গায় দুশ দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ                    করোনায় কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করলেন বলাকা ক্লাব                    তিন পার্বত্য জেলায় পাহাড়ীদের প্রধান সামাজিক উৎসব পালনে স্থগিতের আদেশ                    
 

রাঙামাটিতে সামাজিক ও আচরণ পরিবর্তন যোগাযোগ বিষয়ক কর্মশালা

ষ্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 26 Sep 2019   Thursday

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের আওতায় স্থানীয় জনগণের অংশগ্রহণে সামাজিক ও আচরণ পরিবর্তন যোগাযোগের মাধ্যমে সরকার ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করতে বৃহস্পতিবার রাঙামাটিতে দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সভা কক্ষে কর্মশালায় প্রধান হিসেবে উপস্থিত অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক (উপ-সচিব) ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরীর সভাপতিত্বে কর্মশালায় গস্ট অব অনার হিসেবে স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক(অতিরিক্ত সচিব) দীপক চক্রবর্তী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক এবং রাঙামাটি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(শিক্ষা ও আইসিটি) শারমিন আলম, জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা দাউদ হোসেন চৌধুরী, ইউনিসেফ চট্টগ্রাম ডিভিশনের চীফ মাধুরী ব্যানার্জী, ইউনিসেফ চট্টগ্রাম ডিভিশনের অফিসার গিতা রানী দাশ, জুরাছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা, বিলাইছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরোত্তম তঞ্চঙ্গ্যা, টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক (অর্থ ও প্রশাসন) মোঃ জানে আলম। এসময় জুরাছড়ি ও বিলাইছড়ি উপজেলার জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।


কর্মশালায় মোট ১৫টি অগ্রাধিকার জীবন রক্ষাকারী আচরণ ও চর্চা নিয়ে অংশগ্রহণকারীরা বিশদভাবে আলোচনা করেন।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, সমতলের চাইতে পার্বত্য জেলাগুলো শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ’সহ বিভিন্ন দিক দিয়ে পিছিয়ে রয়েছে। দূর্গম এলাকার মানুষ স্বাস্থ্য সচেতনতার অভাবে মা ও শিশু মুত্যু, বাল্য বিবাহ, শিশুর পরিপূর্ণ বিকাশে যতœ, সামাজিক আচার আচরণ’সহ বিভিন্ন বিষয়ে অসচেতন। তাদের সচেতন করতে তিনি তৃণমূল পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি, সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তাসহ সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, প্রত্যন্ত অঞ্চলে এখনো সনাতন পদ্ধতিতে ধাত্রী দিয়ে বাচ্চা প্রসব ব্যবস্থা প্রচলিত রয়েছে। যার ফলে মা ও শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি থেকে যায়।


তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার প্রতিটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গর্ভবতী মায়েদের সুষ্ঠভাবে প্রসবের জন্য আলাদা কক্ষ, ঔষধপত্র, পরিপূর্ণ সরঞ্জাম ও চিকিৎসক নিয়োগ দিয়েছেন। অতি ঝুকিপূর্ণ হলে রোগীদের অন্যত্র রেফারের জন্য এম্বুলেন্স দিয়েছেন। সরকার কর্তৃক প্রদত্ত এসব সুযোগ সুবিধার তথ্যগুলো দুর্গম এলাকার প্রতিটি ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

 

কর্মশালায় গেস্ট অব অনারের বক্তব্যে দীপক চক্রবর্তী বলেন, আমরা আগামী প্রজন্মের কাছে ঋণী। কারণ আগামীতে এই প্রজন্মের শিশুরাই আমাদের দেশ পরিচালনা করবে। তাই তাদের জন্য বাসযোগ্য পৃথিবী আমাদের এখন থেকেই করে দিতে হবে। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে অদ্যাবধি ইউনিসেফ এ দেশের শিশুদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। তাদের কর্মকান্ডগুলো সতিই প্রসংসনীয়। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতার জন্মদিনটিকে জাতীয় শিশু দিবস ঘোষণা করে জাঁকজমকভাবে পালন করছে। এতেই বুঝা যায় বর্তমান সরকার শিশুবান্ধব সরকার।


তিনি আরো বলেন, প্রত্যন্ত এলাকার মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিদের আরো গতিশীল হতে হবে। বর্তমান সরকার স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করতে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, প্রত্যন্ত এলাকায় গণসচেতনতা সৃষ্টি করে সামাজিক ও আচরণ পরিবর্তনের মাধ্যমে শিশু, নারীসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে প্রান্তিক এলাকায় সরকারের কার্যক্রমগুলোকে আমাদের এগিয়ে নিতে হবে।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদক/সিআর.

আর্কাইভ