• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
৩০ লক্ষ শহীদদের স্মরণে জুরাছড়িতে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন                    বরকলে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন                    ৩০ লক্ষ শহীদদের স্মরণে রাঙামাটিতে ৫৬ হাজার বৃক্ষরোপণ                    জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে পানছড়িতে সংবাদ সম্মেলন                    পার্বত্য চুক্তির প্রতি শ্রদ্ধা রেখে সবাইকে কাজ করতে হবে-বৃষকেতু চাকমা                    পলি ও ড্যাম নির্মাণের কারণে কাপ্তাই হ্রদে রুই জাতীয় মাছের উৎপাদন কমছে                    কাপ্তাইয়ে মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সংবাদ সন্মেলন                    লামা ও আলীদমে উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান                    পানছড়িতে বিভিন্ন প্রজাতির সাত হাজার বৃক্ষরোপন                    কাপ্তাইয়ে ফলদ বৃক্ষ রোপন পক্ষ ও জাতীয় ফল প্রদর্শনী জমে উঠেনি!                    লামায় ৩বসত ঘর গুঁড়িয়ে দিয়েছে বন্য হাতির পাল                    কাপ্তাইয়ের অতি বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্হ ৯ পরিবারকে টেউটিন ও নগদ টাকা প্রদান                    নানিয়ারচরের ঘিলাছড়িতে এলজিসহ আটক ২                    স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ-সমাবেশ                    আলীকদমে তিন দিনের ফলদ ও বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন                    আলীকদমে হাসপাতালের জমি উদ্ধারে গঠিত তদন্ত কমিটির কাজ শুরু                    খাগড়াছড়িতে তথ্য অধিকার বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত                    লামায় মুক্তিযুদ্ধে নিহত ৩০ লাখ শহীদের স্মরনে ৩০ লক্ষ বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি                    রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে সেবা গ্রহীতাদের সাথে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের যৌথ সভা                    রাঙামাটিতে যুবদলের বিক্ষোভ-সমাবেশ                    কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা ও শিক্ষকদের লাঞ্ছিতের ঘটনায় পিসিপি’র নিন্দা                    
 

রাঙামাটিতে আদিবাসী গ্রন্থ মোড়ক অনুষ্ঠানে
কাপ্তাই বাঁধ জুম্ম জনগণের মরণ ফাঁদ হিসেবে পরিণত হয়েছিল-সন্তু লারমা

স্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 19 Mar 2017   Sunday

পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা(সন্তু লারমা) কাপ্তাই বাঁধ জুম্ম জনগণের মরণ ফাঁদ হিসেবে পরিণত হয়েছিল উল্লেখ করে বলেছেন, ১৯৬০ সালের কাপ্তাই বাধেঁর কারণে পার্বত্য চট্টগ্রামে সবচেয়ে বধিঞ্চু অঞ্চল জলমগ্ন হয়ে যায়। তখন সমগ্র পার্বত্যঞ্চলের জীবন ধারার উপর বিপর্যয় নেমে আসে। তারপরও সেই বিপর্যয়ের সাথে মুখোমুখি হয়ে সমস্ত জুম্ম জাতি আরো আরো এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছে।


রোববার রাঙামাটিতে আদিবাসী কবি ও সাহিত্যিক প্রমোদ বিকাশ কারবারীর চাকমা (ফেলাজেয়া চাকমা) কাব্যগ্রন্থ ও আদিবাসী ব্যক্তিত্বদের জীবন কাহিনী গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচনকাল তিনি এ কথা বলেন।


উল্লেখ্য, চাকমা ভাষার পাশাপাশি বাংলা ও ইংরেজীতে অনুবাদ করা আদিবাসী কাব্যগ্রন্থ কিযিঙৎ পুগোবেল পার্বত্য চট্টগ্রামে এটাই প্রথম। এছাড়া পার্বত্য চট্টগ্রামের ২২জন আদিবাসী ব্যক্তিত্বের যারা বিশেষ অবদান রেখেছন তাদের জীবন কাহিনী নিয়ে লেখা আলোর পথ দেখালো যারা গ্রন্থটিও পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথম গ্রন্থ।  এ দুটি গ্রন্থের প্রকাশক হচ্ছেন ইন্টু মনি তালুকদার এবং রেগা প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত।


সন্তু লারমা আরো বলেন, এই দুটি গ্রন্থে পার্বত্য চট্টগ্রামের সমগ্র জীবন ধারা, দর্শন ও অধিকারের বাস্তবতার কথা ফুটে উঠেছে। পাশাপাশি এ দুটি গ্রন্থের মাধ্যমে জীবনকে উজ্জীবিত করে জুম্ম জনগণের স্বাধিকার,অধিকার প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে অনেক কিছু খুজে পাওয়া যাবে। এ দুটি গ্রন্থ পার্বত্য চট্টগ্রামের সাহিত্য ও ইতিহাসের বিষয়ে বর্তমান তরুন প্রজন্মেও কাছে উপকারে আসবে।


শহরের শাবারাং রেষ্টুরেন্টে আয়োজিত সাবেক উপ-সচিব প্রকৃতি রঞ্জন চাকমার সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক ছিলেন চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়। এতে বক্তব্যে রাখেন কবি শিশির চাকমা, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান চিংকিউ রোয়াজা, এমএন লারমা মোমোরিয়েল ফাউন্ডেশনের সভাপতি বিজয় কেতন চাকমা। স্বাগত বক্তব্যে রাখেন গ্রন্থের লেখক প্রমোদ বিকাশ কারবারী(ফেলাজেয়া চাকমা)। অনুষ্ঠানে আদিবাসী সাহিত্যিক, কবিসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।


অনুষ্ঠান শুরুর আগে চাকমা কাব্যগ্রন্থ কিযিঙৎ পুগোবেল ও আদিবাসী ব্যক্তিত্বদের জীবন কাহিনী গ্রন্থ আলোর পথ দেখালো যারা গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন সন্তু লারমা। অনুষ্ঠান শেষে প্রমোদ বিকাশ কারবারী(ফেলাজেয়া চাকমা) তার স্বরচিত কবিতা পাঠ করে শুনান।


সন্তু লারমা তার বক্তব্যে আক্ষেপ করে বলেন, রাঙামাটির স্বভাব,চরিত্র, সৌন্দর্য্য ও তার বাস্তবতা আজকে হারিয়ে গেছে। আজকে রাঙামাটি মনে হয় আমার রাঙামাটি নয়। এই রাঙামাটি আজকে আগের মত আর নেই।


চাকমা জাতির বীর যোদ্ধা ও সেনাপতি রনু খান ব্রিটিশদের সাথে সর্বোচ্চ দিয়ে লড়াই করেছেন এবং আত্নসর্মপণ করেননি এই গ্রন্থে বলা হয়েছে তার উল্লেখ করে তিনি রনু খানের মত প্রত্যেক জুম্ম জাতির নর-নারীকে কোন দিনই পরাজয় বরণ না করে নিজেদের অধিকারের জন্য আরো বেশী সক্রিয় হয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ