• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
মহালছড়ি মিলনপুর বনবিহারে মাস ব্যাপী আকাশ প্রদীপ প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠান সমাপ্ত                    নানিয়ারচর উপজেলাবাসীর প্রথম সার্বজনীন মহাসংঘদান অনুষ্ঠিত                    রাঙামাটিতে বৌদ্ধ মৈত্রী সংঘের ২০ বছর পূর্তিতে গুনী ব্যক্তি সন্মাননা ও বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানকে শ্রদ্ধাদান                    মহালছড়িতে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উদযাপন                    বরকলে নলকূপ তত্ত্বাবধায়ক প্রশিক্ষণার্থীদের সমাপনী সভা অনুষ্ঠিত                    বরকলে ৪৫বিজিবির দেওয়া সমবায় গরু খামার প্রকল্পের শুভ উদ্ধোধন                    রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সেলাই মেশিন বিতরণ                    খাগড়াছড়িতে ডিজিটাল দিবসে র‌্যালি ও আলোচনা সভা                    রাঙামাটির রাজ বন বিহারে বংসা-ওয়াংসা গোঝার সার্বজনীন সংঘ দান অনুষ্ঠানের আয়োজন                    খাগড়াছড়িতে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সংবাদ সম্মেলন                    মহালছড়িতে লীন প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা                    পার্বত্য ভিক্ষু সংঘের তৃতীয় সংঘরাজ অভয়তিষ্য মহাথেরোর অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন                    সড়ক উন্নয়নে মৈদং ইউনিয়নের চল্লিশ দিনের কর্মসূচী                    মহালছড়িতে রহমান স্মৃতি ফুটবল টুর্ণামেন্ট`র ফাইনাল খেলা ও পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন                    উপার্জনক্ষম একমাত্র সন্তানের জামিন চেয়ে রাঙামাটিতে বৃদ্ধ পিতা-মাতার সংবাদ সম্মেলন                    সংঘরাজ প্রয়াত ভদন্ত অভয়তিষ্য মহাথেরোর তিন দিন ব্যাপী অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান শুরু                    রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে খোলাবাজারে ৪৫ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি শুরু                    বিলাইছড়িতে বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন                    বিলাইছড়িতে আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস উদযাপন                    পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের দাবিতে মহালছড়িতে বিক্ষোভ সমাবেশ                    বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে রাঙামাটিতে মানববন্ধন ও আলোচনা সভা                    
 

জুম ঈসথেটিকস কাউন্সিলের ৩৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

স্টাফ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 02 Mar 2017   Thursday

বৃহস্পতিবার রাঙামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন জুম ঈসথেটিকস কাউন্সিলের(জাক) এর ৩৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে আলোচনা সভায় পার্বত্য চট্টগ্রামের কবি,সাহিত্যক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিদের অংশ গ্রহনে প্রাণ প্রিয় সংগঠন জাক-এর স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে যেনো এক সাহিত্য আড্ডায় পরিণত হয়।  


বনরুপাস্থ জাক-এর কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জাক-এর সভাপতি শিশির চাকমা। বিশেষ অতিথি ছিলেন জাকের সাবেক সভাপতি মঙ্গল কুমার চাকমা, বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী রনজিত দেওয়ান, মনোজ বাহাদুর গুর্খা ও রাঙামাটি চারুকলা একাডেমীর অধ্যক্ষ রতিকান্ড তংচংগ্যা।

 

অনুষ্ঠানে জাকের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠা বাষির্কী উপলক্ষে অনুভূতি ব্যক্ত করেন কবি ও সাহিত্যক মৃত্তিকা চাকমা, কবি সজীব চাকমা, জাকের সাবেক সভাপতি মানস মুকুর চাকমা, জাকের সাবেক সাধারন সম্পাদক তরুন চাকমা, জাকের সাবেক সভাপতি মিহির কান্তি চাকমা, জাক-এর সহ-সভাপতি সুখেশ্বর চাকমা পল্টু,রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ইনষ্টিটিউটের গবেষনা কর্মকর্তা শুভ্র জ্যোতি চাকমা,জাক-এর সদস্য যশেশ্বর চাকমা বিল্টু, সাংবাদিক সত্রং চাকমা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে রাঙামাটির বিশিষ্টজনসহ জাক-এর কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জাক-এর সাধারন সম্পাদক রনেল চাকমা।


আলোচনা সভা  শেষে জাক-এর শিল্পীদের সংগীত পরিবেশনা ছাড়াও  বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী রনজিত দেওয়ান ও মনোজ বাহাদুর গুর্খা সংগীত পরিবেশন করেন।  


অনুষ্ঠানে বিশিষ্টজনরা জাক-এর ৩৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর শুভ কামনা ও স্মৃতিচারণ করে বলেন,জাক হচ্ছে পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসী জনগোষ্ঠীদের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক চর্চার অন্যতম একটি সংগঠন। যে সংগঠনটি পার্বত্য চট্টগ্রামের পরিস্থিতিতে অনেক চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে আজ সাহিত্য ও সাংস্কৃতি চর্চা ক্ষেত্রে  পার্বত্য চট্টগ্রামসহ দেশ-বিদেশে ব্যাপক সুনাম  কুড়িয়েছে। পাশপাশি জাক সাহিত্য ও সাংস্কৃতি রক্ষা ও চর্চার  ক্ষেত্রে আবদান রেখে চলেছে।  বক্তারা জাক সাহিত্য ও সাংস্কৃতি  চর্চার ক্ষেত্রে  যে আবদান  রেখে চলেছে ভবিষ্যতেও আরো বেশী আবদান রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


সভাপতির বক্তব্যে শিশিরি চাকমা বলেন, আমরা আমাদের ভাষা নিয়ে যদি কাজ না করি তাহলে এসব ভাষা অন্ধকারে হারিয়ে যাবে। চোখের সামনে আমাদের ভাষা হারিয়ে যাবে তা সহ্য করা যায় না। বিশেষ করে চাকমা ভাষাগুলো হারিয়ে যেতে বসেছে। সে জন্য সবাইক সচেতন হতে হবে এবং তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করতে হবে। তিনি জাক  যে সাহিত্য ও সংস্কৃতি রক্ষার জন্য কাজ করে যাচ্ছে তার সহায়তার জন্য সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।


মঙ্গল কুমার চাকমা বলেন, জাক প্রতিষ্ঠার পর থেকে আদিবাসী জুম্মদের সাহিত্য ও সাংস্কৃতি রক্ষার জন্য আন্দোলন করে যাচ্ছে। এটি সহজ আন্দোলন নয়,এটি একটি ব্যাপক আন্দোলন। গান, সাহিত্য ও সংস্কৃতি  হচ্ছে জীবনের অধিকার, তারা তার জন্য আন্দোলন করে যাচ্ছেন।


তিনি আরো বলেন, জাক ধ্বংসপ্রাপ্ত ও বিলুপ্ত প্রায় সংস্কৃতিকে রক্ষার জন্য ৮১ দশত  থেকে কাজ করে আসছে। তিনি বলেন, আমাদের ভাষাগুলো দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে চাকমা ভাষা হারিয়ে যাচ্ছে। চাকমা ভাষায় বাংলা শব্দ ব্যবহৃত হচ্ছে। এ ভাষা রক্ষার জন্য জাক আরো অগ্রনী ভূমিকা রাখতে পারে।


মনোজ বাহাদুর গুর্খা বলেন, সংগঠনকে শক্তিশালী করার জন্য সাহসী ও যোগ্য নেতৃত্বের প্রয়োজন রয়েছে। জাক-এর মধ্যে সাহসী ও যোগ্য নেতৃত্ব রয়েছে। জাক সাহসী ও যোগ্য নেতৃত্বে এগিয়ে গিয়ে সাহিত্য ও সংস্কৃতিকে আরো বেগবান করবে।


উল্লেখ্য, পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসী জুম্ম  গোষ্ঠীদের ভাষা, সংস্কৃতি,সাহিত্য চর্চা ও বিকাশের লক্ষে ১৯৮১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারী বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া কয়েকজন সাহিত্য ও সংস্কৃতি মনা তরুন জুম ঈসথেটিকস কাউন্সিলের(জাক) প্রতিষ্ঠা করেন। এর আগে জাক-এর নাম ছিল রাঙামাটি ঈসথেটিকস কাউন্সিলের(রাক)।

 

এর পর  থেকে জাক পার্বত্য চট্টগ্রামের সাহিত্য ও সংস্কৃতি ক্ষেত্রে ব্যাপক অবদান রেখে চলেছে। সাহিত্য ও সংস্কৃতি মনা তরুনদের মধ্যে রয়েছেন কবি ও সাহিত্যক সুহৃদ চাকমা(প্রয়াত), সুষময় চাকমা, মৃত্তিকা চাকমা, ঝিমিত ঝিমিত চাকমা, শিশির চাকমা, মঙ্গল কুমার চাকমা,শান্তি ময় চাকমা,মানস মুকুর চাকমা প্রমুখ।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.
 

 

 

 

আর্কাইভ