• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
খাগড়াছড়িতে ১৫ জেএমবি সদস্যের যাবজ্জীবন                    খাগড়াছড়িতে বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের ডাকে শান্তিপূর্ন সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালিত                    পাহাড় ধস সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধিততে খাগড়াছড়িতে র‌্যালী ও কর্মশালা                    রাঙামাটিতে ঝুকিপূর্ন স্থানে বসবাস না করে নিরাপদ স্থানে বসবাসের আহ্বান জানালেন দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী                    রাঙামাটিতে সেনা বাহিনীর উদ্যোগে শিশুদের বিনোদনের হ্যাপী আইল্যান্ড উদ্ধোধন                    খাগড়াছড়ির বেতছড়িতে পিতা-পুত্রসহ তিন জনকে অপহরণের নিন্দা                    ইউপিডিএফের নেতাকে হত্যার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ,পুলিশী বাধার অভিযোগ                    পানছড়িতে ইউপিডিএফ`র নেতাকে হত্যার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ                    রাজস্থলীতে পর্যটন সম্ভাবনাময় দর্শনীয় স্থানগুলো অবহেলিত                    লামায় বন্য হাতির আক্রমণে গুরুতর আহত ১                    লামায় অগ্নিকান্ডে ১২টি বসত ঘর ভূস্মিভূত                    পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রধারীদের সংঘাতে সাধারণ মানুষ শংকিত- দীপংকর তালুকদার                    বরকলে বিজিবির উদ্যোগে আইন শৃংখলা বিষয়ে মতবিনিময় সভা                    গুইমারা ও পানছড়িতে দু ব্যক্তির লাশ উদ্ধার                    পানছড়িতে প্রতিপক্ষের গুলিতে ইউপিডিএফের ১ কর্মী নিহত: গুলিবিদ্ধ ১                    খাগড়াছড়ি শহর পরিদর্শনে ৩৬ পৌর মেয়র                    পাহাড়কে অশান্ত রাখতে একটি মহল ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে-পংকজ দেবনাথ এমপি                    পাহাড় ধসের মোকাবেলায় রাঙামাটিতে চিহিৃত ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসে নিষেজ্ঞা                    মৈত্রী সেতু দু’দেশের অর্থনৈতিক প্রাঁণ চাঞ্চলতা ফিরেয়ে আনবে-নৌপরিবহণ মন্ত্রী                    রাজস্থলী উপজেলায় শেষ সাংগ্রাই কুটুরিয়া পাড়া অনুষ্ঠিত                    কাপ্তাই সার্কেলের সিনিয়র এএসপি অাসলাম ইকবাল অার নেই                    
 

বিদ্যুৎ ভোগান্তিতে অতিষ্ঠ রাঙামাটিবাসি

Published: 10 Oct 2017   Tuesday

২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সর্বোচ্চ রেকর্ড উৎপাদন ছিল ২৪২ মেগাওয়াট। অথচ একই সময়ে এখন উৎপাদন হচ্ছে মাত্র ১২৫ মেগাওয়াট। উৎপাদনের এই ফারাকে ভরা মৌসুমেও লাগাতার বিদ্যুৎ ভোগান্তিতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে রাঙামাটিবাসি। 

 

দীর্ঘদিন ধরে সঞ্চালন লাইন সংস্কার না হওয়ায় ত্রুটি অপসারণ ও পুনঃসংযোগ স্থাপনে দেখা দিচ্ছে নানান সমস্যা। ফলে প্রতিনিয়ত বাড়ছে লোডশেডিং। ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জনজীবন। তবে এই সংকটের জন্য ১টি ইউনিটের উৎপাদন বন্ধ আর বৃষ্টি ও বজ্রপাতকেই দায়ি করছেন বিদ্যুৎ বিভাগ।


টানা বৃষ্টি এবং পাহাড়ি ঢলের কারণে কাপ্তাই হ্রদের পানি দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে এই সময়কে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য ভরা মৌসুম হিসেবে বিবেচনা করা হয়। বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য বেশ কিছুদিন ধরেই হ্রদে পানি ধরে রেখেছে পানিবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ। এতে হ্রদবেবেষ্টিত রাঙামাটি শহর ও বেশ কয়েকটি উপজেলায় বসতবাড়ি, ফসলি জমি ও বিস্তীর্ণ এলাকা পানিতে ডুবে রয়েছে।


জলজটে জনদুর্ভোগের সাথে বিদ্যুৎ ভোগান্তিতে জনমনে ক্রমশ বাড়ছে ক্ষোভ। বসতবাড়ি ডুবে যাওয়া রসুলপুরের বাসিন্দা রাসেল আহমদ(৪৮) বলেন, বিদ্যুৎ উৎপাদনের নামে হ্রদে পানি আটকে জনদুর্ভোগ বাড়ানো হয়েছে। অথচ বিদ্যুৎ ভোগান্তি বন্ধের নাম নেই। শহরের বনরুপা এলাকার ব্যবসায়ী কাজল দে(৫০) বলেন, ভরা মৌসুমেও যদি লোডশেডিং চলতে থাকে তাহলে গরমের মৌসুমে কিভাবে বাঁচবো?


রাঙামাটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা গৃহবধু সাফিয়া বেগম (৪৫) বলেন, বিদ্যুৎ না থাকলে অসহনীয় গরমে প্রাণ বেড়িয়ে যেতে চায়। রাঙামাটি সরকারি কলেজের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থি সাদিয়া মুন বলেন, দিনেরাতে প্রায় সময় বিদ্যুৎ থাকে না।


রাঙামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী বলেন, কাপ্তাই লেকে পানি বাড়ায় বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়ার কথা। তারপরও লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ বিভ্রাট থামছেনা। বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতে না পারলে পানি ধরে রেখে জনদুর্ভোগ বাড়ানো হচ্ছে কার স্বার্থে।


রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল বলেন, বিপুল সংখ্যক মানুষকে বাস্তুচ্যুত করে কাপ্তাই পানিবিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্প স্থাপন করা হয়েছে। অথচ এ বিদ্যুৎ সারা দেশকে আলোকিত করলেও ‘বাতির নিচে অন্ধকারে রাখা’ হচ্ছে রাঙামাটিকে।


কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলী সমর তালুকদার জানান, বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পাঁচটির মধ্যে চারটি ইউনিট থেকে ১২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে। ৫ নম্বর ইউনিট বিকল থাকায় আরও ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কম হচ্ছে।


রাঙামাটি বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ কান্তি মজুমদার দাবী করেন, সাম্প্রতিক বৃষ্টি ও বজ্রপাতের কারণে বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন বিচ্ছিন্ন হয়ে বিঘ্ন ঘটছে। ধারণক্ষমতার বেশি লোডও সংকটের অন্যতম কারণ। তবে পুরনো এ লাইনটি সংস্কার হলেই সমস্যা কমে যাবে।
--হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

এই বিভাগের সর্বশেষ
আর্কাইভ