• Hillbd newsletter page
  • Hillbd rss page
  • Hillbd twitter page
  • Hillbd facebook page
সর্বশেষ
রাঙামাটির দুটি গ্রামে কর্মহীন প্রান্তিক জনগোষ্ঠীদের মাঝে এখনো খাদ্য সহায়তা নেই                    পাহাড়ে বিজু উৎসব বিরত রাখতে অনুরোধ রাঙামাটি হেডম্যান এসোসিয়েশনের                    জুরাছড়িতে কর্মহীন লোকজনদের মাঝে জেলা পরিষদের ত্রাণ সহায়তা প্রদান                    নানিয়ারচরে ১২শত কর্মহীন পরিবারকে খাদ্য শস্য দিল রাঙামাটি জেলা পরিষদ                    রাঙামাটিতে মোটর বাইকবাহী ইমার্জেন্সি রেসপন্স টীম দিয়ে ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌছে দিচ্ছে                    বাঘাইছড়িতে তিন শতাধিক অসহায়দের মাঝে বিএনপির ত্রাণসামগ্রী বিতরণ                    বরকলে ১শ ৫০জন কর্মহীন পরিবারের মাঝে খাদ্যশস্য বিতরণ                    করোনা মোকাবিলার রাঙামাটি প্রশাসনের কাছে আর্থিক সহায়তা জুম ফাউন্ডেশনের                    রাঙামাটির বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে জেলা পরিষদের করোনা সুরক্ষা উপকরণ বিতরণ                    করোনা মুক্ত রাখতে কাজ করছে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন                    রাঙামাটিতে অসহায় ও গরীব ১২০ পবিরারের ঘরে ঘরে খাদ্য শষ্য পৌছে দিয়েছে ছাত্রলীগ                    করোনা ভাইরাস সংক্রমন ঠেকাতে মহালছড়ির বেশিরভাগ গ্রাম লকডাউন                    বাঘাইছড়ি কাচালং নদীতে ৩৬ঘণ্টা পর নারীর মরদেহ উদ্ধার                    বিনা চিকিৎসায় ঢাবির এক পাহাড়ী শিক্ষার্থীর মৃত্যুর অভিযোগ                    মানুষকে ঘরে রাখার জন্য খাগড়াছড়ি প্রশাসনের প্রচেষ্টার কমতি নেই                    বরকলে ১৫শ অসহায় পরিবারের মাঝে জেলা পরিষদের খাদ্যশস্য বিতরণ                    করোনার প্রভাবে কর্মহীন ৫শ’ ব্যবসায়িকে ত্রাণ দিল রিজার্ভ বাজার ব্যবসায়ি কল্যাণ সমিতি                    মহালছড়িতে কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ইউএনও`র ত্রাণ বিতরণ                    খাগড়াছড়িতে পরিবহন শ্রমিকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ                    বন্দুকভাঙ্গায় ১শ গরীব ও কর্মহীনদের ত্রাণ সামগ্রি বিতরণ করলেন ব্যবসায়ী তপন চাকমা                    রাঙামাটিতে ১০টাকা কেজি ওএমএস চাউল বিতরণ শুরু                    
 

মোবাইল কলের মাধ্যমে পানির পাম্প অফ-অন এবং দরজা বন্ধ ও খোলার যন্ত্র তৈরী করলেন রাঙামাটির পাহাড়ী যুবক মং সিং মারমা

বিশেষ রিপোর্টার : হিলবিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 26 Oct 2014   Sunday

দুর থেকে মোবাইল ফোন কলের মাধ্যমে কিভাবে বাড়ীর সিকিউরিটি লাইট, পানির পাম্প অফ-অন এবং দরজা বন্ধ ও খোলা যায় তার চিন্তা করতে করতে এক সময় সেই যন্ত্রটি তৈরী করে ফেললেন আদিবাসী যুবক মংসিং মারমা।

 

বর্তমানে পরীক্ষামূলকভাবে নিজের বাড়ীতে নিজের তৈরী করা যন্ত্রটি ব্যবহার করছেন। পৃষ্ঠাপোষকতা ও আর্থিক সহায়তা ফেলে উদ্ভাবিত এ যন্ত্রটি আধুনিকায়ন করে জনগনের সেবায় পৌঁছে দেয়ার স্বপ্ন দেখছেন মং সিং।

 

রাঙামাটি শহরের বনরুপা বাজার এলাকায় বসবাস করেন আদিবাসী যুবক মংসিং মারমা। তিনি পেশায় একজন চিত্রশিল্পী। বাবার মারা যাওয়ার পর পরিবারের বড় ছেলে হওয়াতে পরিবারের হাল ধরতে হয় তাকে। বর্তমানে তিনি স্কুল পড়ুয়া শিশুদের চিত্রাংকন শিখিয়ে প্রতি মাসে যে টাকা পান তা দিয়ে সংসার চালান মংসিং মারমা।

 

একদিন তিনি তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রাঙামাটির বাইরে আত্বীয়ের বাড়ীতে বেড়াতে যান। কিন্তু রাতে বেলার জন্য বাড়ীর বাইরে সিকিউরিটি লাইট জ্বালিয়ে যাননি। রাতে সিকিউরিটি লাইট না জ্বালানোর কারণে হয়তো চোরেরা বাড়ীর জিনিসপত্র চুরি করে নেয়ার সুযোগ পাবে। তাই সেই দুশ্চিন্তা থেকে মংসিং মারমার মাথায় ঘুরপাক খেতে থাকে কিভাবে দুর থেকে মোবাইল কলের মাধ্যমে বাড়ীর সিকিউরিটি লাইট জ্বালানো যায়।

 

অবশেষে সাহস করে তিনি বাজার থেকে একটি মোবাইল সেট, কিছু সার্কিটসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম ক্রয় করে  দুর থেকে নিয়ন্ত্রন করা যায় সেই রকম যন্ত্র তৈরীর কাজে নেমে পড়লেন। তিনি সময় ফেলে কাজে বসে যান  যন্ত্র তৈরীর কাজে। এভাবে দীর্ঘ এক বছর গবেষনা করে মোবাইল কলের মাধ্যমে দেশের যে কোন প্রান্ত থেকে বসে সিকিউরিটি লাইট, পানির পাম্প অফ-অন, দরজা বন্ধ ও খোলার যন্ত্র তৈরী করতে সক্ষম হন। তবে তৈরী করা যন্ত্রের জন্য মোবাইল, সার্কিটসহ অন্যান্য জিনিসপত্র ক্রয় করতে তার ব্যয় হয়েছে মাত্র পাঁচ হাজার টাকা। তার এ তৈরী যন্ত্র দেখতে ইতোমধ্যে তার অনেক বন্ধু-বান্ধব ও শুভকাংখিরা দেখে ক্রয়ের জন্য আগ্রহও প্রকাশ করেছেন।

 

আদিবাসী যুবক মংসিং মারমার কারিগরী কোন প্রশিক্ষন নেই। এমনকি দারিদ্রতার কারনে এসএসসি গন্ডি পর্ষন্ত পেরুতে পারেননি। তবে তিনি হাতের কাজ হিসেবে রাঙামাটি চারুকলা একাডেমী থেকে চিত্রাংকন শিখেছেন। মোবাইল কলের মাধ্যমে বাড়ীর সিকিউরিটি লাইট, পানির পাম্প অফ-অন এবং দরজা বন্ধ ও খোলার যন্ত্র উদ্ভাবনের জন্য তার পেছনে রয়েছে মংসিং তার অদম্য মেধা ও প্রবল ইচ্ছা শক্তি।

 

মংসিং মারমা জানান,দুর থেকে কিভাবে মোবাইল কলের মাধ্যমে বাড়ীর পানির পাম্প অফ-অন এবং দরজা খোলা ও বন্ধ করা যায় তার চিন্তা করতে থাকি। এক সময় মনের শক্তি সঞ্চয় করে বাজার থেকে একটি মোবাইল সেট, সার্কিটসহ প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ক্রয় করেএ যন্ত্রটি তৈরী করতে বসে গেলাম।

 

প্রতিদিন সময় ফেলে কিভাবে তৈরী করা যায় কাজে নেমে পড়তাম। অবশেষে দীর্ঘ এ বছর পর সত্যি সত্যিই মোবাইল কলের মাধ্যমে বাড়ীর সিকিউরিটি লাইট ও পানির পাম্প অফ-অন এবং দরজা খোলা ও বন্ধ করার যন্ত্রটি তৈরী করতে সক্ষম হই। বর্তমানে তৈরী করা যন্ত্রটি পরীক্ষামুলকভাবে তার নিজের বাড়ীতে ব্যবহার করছেন।

 

তিনি আরও জানান, সরকারী-বেসরকারীভাবে সহযোগিতা ফেলে এ যন্ত্রটি আধুনিকায়ন করে জনগনের সেবায় পৌঁছে দিতে সক্ষম হবেন।
–হিলবিডি২৪/সম্পাদনা/সিআর.

আর্কাইভ